• ঢাকা
  • |
  • শুক্রবার ১৮ই ফাল্গুন ১৪৩০ রাত ১০:৩৩:৫৯ (01-Mar-2024)
  • - ৩৩° সে:
এশিয়ান রেডিও
  • ঢাকা
  • |
  • শুক্রবার ১৮ই ফাল্গুন ১৪৩০ রাত ১০:৩৩:৫৯ (01-Mar-2024)
  • - ৩৩° সে:

ফুলবাড়ীতে কুকুরের কামড়ে ৮ ছাগলের মৃত্যু, আতঙ্কে স্থানীয়রা

পার্বতীপুর  দিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরের ফুলবাড়ীর খয়েরবাড়ী পশ্চিমপাড়া গ্রামে একই দিনে কুকুরের কামড়ে ৪টি পরিবারের ৮টি ছাগলের মৃত্যু হয়েছে। এতে শিশুসহ গবাদি পশু নিয়ে বিপাকে পড়েছে ৪ গ্রামের বাসিন্দা। দ্রুত কুকুর গুলোকে চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি তাদের।২৮ ফেব্রুয়ারি বুধবার সরজমিনে গিয়ে জানা গেছে, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার সকাল থেকে বিকালের মধ্যে এলাকার বিভিন্ন জায়গায় ছেড়ে দেওয়া ও বেঁধে রাখা ৮টি ছাগলকে ৫টি কুকুরের একটি দল আক্রমণ করে ঘাড়ে ও মাথায় কামড় দিয়ে জখম করে। এর কিছুক্ষণ পর ছাগলগুলো মারা যায়। মৃত ৬টি ছাগলকে মাটিতে পুতে রাখা হয়। অপর ২টি ছাগল পাশের গ্রামের আদিবাসিরা খাবারের উদ্দ্যেশে নিয়ে যায়।মৃত ছাগলের মালিক বেলাল হোসেন জানান, আমি সকালে আমার জমিতে ৪টি ছাগল বেঁধে রেখে আসি। দুপুরের দিকে তাদের খোঁজ করতে গিয়ে দেখতে পাই ছাগলগুলো মৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে। এসময় তাদের ঘাড় থেকে রক্ত ঝরতেও দেখা গেছে।বিষয়টি নিয়ে প্রতিবেশীদের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, ৫টি অসুস্থ কুকুরের একটি দল তার ছাগলকে কামড়ে মেরে ফেলে। আমি কুকুর গুলোকে মারার চেষ্টা করেছিলাম, কিন্তু তারা আমাকেও আক্রমণ করতে এগিয়ে আসে। ভয়ে আমি পালিয়ে আসি।ছাগল মালিক পপি বেগম বলেন, আমার ছাগলগুলো বাড়ির পাশের মাঠে ঘোরা-ফেরা করছিলো। হঠাৎ কয়েকটা কুকুর আমার ছাগলকে আক্রমণ করে কামড় দিয়ে চলে যায়। এই ঘটনায় আমার ৩টা ছাগলের মধ্যে ২টি মারা গেছে। মৃত ছাগলগুলো পাশের গ্রামের আদিবাসী সাঁওতালরা নিয়ে গেছে। অপর ছাগল মালিক কল্পনা রানী বলেন, আমার ২টি ছাগল মাঠে রেখে আসছিলাম। এর মধ্যে একটিকে কুকুর কামড় দিয়ে মেরে ফেলেছে।বিষয়টি নিয়ে খয়েরবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হক বলেন, স্থানীদের মাধ্যমে জানতে পেরেছি যে, পশ্চিম পাড়া গ্রামে কুকুরের কামড়ে ৮টি ছাগল মারা গেছে। একটি ছাগল আহত হয়েছে। বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। বিষয়টি নিয়ে উপজেলা প্রশাসনের সাথে কথা বলে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে সহায়তা করার চেষ্টা করবো। এর পাশাপাশি অসুস্থ কুকুরগুলো চিহ্নিত করে তাদের দমনের চেষ্টা করবো।এদিকে, কুকুরের কামড়ে ছাগল মৃত্যুর ঘটনায় এলাকার মানুষের মাঝে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। আশপাশের মানুষসহ গবাদি পশু গুলো নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। স্থানীয়দের দাবি, উপজেলা প্রশাসন যেন দ্রুত সময়ের মধ্যে ঘাতক কুকুর গুলোকে চিহ্নিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেন।উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম বলেন, আমাদের দেশে বেওয়ারিশ কুকুরের সংখ্যা দিন-দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। কুকুরের খাবার সংকটের কারণে তারা  হিংস্র হয়ে উঠতে পারে। আমরা মৃত ছাগলের নমুনা সংগ্রহ করে দেখবো, অসুস্থ কুকুরগুলো কোন-কোন ধরনের রোগে আক্রান্ত হয়ে আছে। আমরা কুকুরগুলো শনাক্তের চেষ্টা করছি। তাদেরকে পাওয়া মাত্রই ভ্যাকসিনের আওয়াতায় আনা হবে।

জেলার ইতিহাস


দর্শনীয় স্থান