• ঢাকা
  • |
  • বুধবার ৫ই আষাঢ় ১৪৩১ বিকাল ০৩:৫৯:০৪ (19-Jun-2024)
  • - ৩৩° সে:
এশিয়ান রেডিও
  • ঢাকা
  • |
  • বুধবার ৫ই আষাঢ় ১৪৩১ বিকাল ০৩:৫৯:০৪ (19-Jun-2024)
  • - ৩৩° সে:

নওগাঁয় পৃথক বজ্রপাতের ঘটনায় নারীসহ ৩ জনের মৃত্যু, আহত ২

নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁর মান্দা ও পত্নীতলা উপজেলায় পৃথক বজ্রপাতে দুই কৃষক ও এক নারীসহ তিনজন মারা গেছেন। ৭ জুন শুক্রবার বিকেলে এসব দুর্ঘটনা ঘটে। একই দিনে বজ্রপাতে বদলগাছীতে দুই ছাগলের মৃত্যু হয়েছে, একই ঘটনায় দুইজন আহত হয়েছেন।স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বিকেল ৪টার দিকে মান্দা উপজেলার ভোলাম গ্রামে ধান শুকানোর কাজ করছিলেন শামসুল আলম (৩৫)। এসময় হঠাৎ বজ্রপাত ঘটলে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। নিহত শামসুল আলম ভোলাম গ্রামের ফইমদ্দিন মন্ডলের ছেলে।নিহত শামসুলের বাবা ফইমদ্দিন জানান, আমার ছেলে বিকেলে বাড়ির পাশের একটি মাঠে ধানের কাজ করার সময় বজ্রপাতে আহত হয়। এরপর আমরা দ্রুত তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যু বরণ করে।এদিকে পত্নীতলায় যাদের মৃত্যু হয়েছে তারা হলেন, উপজেলার পাটিচড়া ইউনিয়নের নাগরগোলা গ্রামের মো. বিশা মন্ডলের ছেলে খাদেমুল ইসলাম (৫০) ও গাহন গ্রামের আ. হামিদের স্ত্রী মনিকা (৩৫)।জানা যায়, বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বৃষ্টির মধ্যে কৃষক খাদেমুল ইসলাম মাঠ থেকে ধান বহন করে বাড়ির উঠানে এসে বজ্রপাতের কবলে পড়ে মৃত্যু হয়। অপর দিকে একই সময়ে গৃহবধূ মনিকা বাড়ির সামনে আম কুড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে মৃত্যু হয়। তাদের স্বজনরা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোজাম্মেল হক কাজী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, শুক্রবার বিকেলে হঠাৎ করেই পশ্চিম আকাশ কালো মেঘে ঢেকে যায়। কৃষক শামসুল আলম মেঘ দেখে বাড়ির পাশে রনাহার মাঠে জমিতে ছেড়ে দেওয়া বোরো ধানের আঁটি এক জায়গায় করার জন্য যান। স্ত্রী লালবানু বিবিও তাঁর সঙ্গে ছিলেন। এ সময় হঠাৎ বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।এছাড়া পত্নীতলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোজাফফর হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে বৃষ্টির মধ্যে কৃষক খাদেমুল ইসলাম মাঠ থেকে ধান বহন করে বাড়ির উঠানে এসে বজ্রপাতের কবলে পড়ে মৃত্যু হয়। অপর ঘটনায়  একই সময়ে গৃহবধূ মনিকা বাড়ির সামনে আম কুড়াতে গিয়ে বজ্রপাতে মৃত্যু হয়। তাদের স্বজনরা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।সংশ্লিষ্ট থানায় তিনটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করে পরিবারের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ কর্মকর্তারা।অপরদিকে বদলগাছী উপজেলায় ছাগল চরানোর সময় বজ্রপাতে দুটি ছাগল মৃত্যু হয়েছে এবং এ ঘটনায় দুজন গুরুতর আহত হয়েছেন। উপজেলার সদর ইউনিয়নের গাবনা গ্রামের মাঠে এ ঘটনাটি ঘটে। আহতরা হলেন, আমিন উদ্দিনের ছেলে খালেক (৩৫) এবং ওবাইদুলের ছেলে হাবিবুর ওরফে হাব্বুল(৪৮)। উভয়ের বাড়ি বদলগাছীর গাবনা গ্রামে।স্থানীয়রা জানান, এদিন বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার গাবনা গ্রামের মাঠে গবাদীপশুকে ঘাস খাওয়নোর সময় ঝড়-বৃষ্টি শুরু হলে সড়কের পাশে গাছের নিচে আশ্রয় নেয় আব্দুল খালেক এবং হবিবুর রহমান। এ সময় বজ্রপাতে গাছের ডাল পড়ে তারা দুইজন মারাত্মকভাবে আহত হয়। এছাড়া ঘটনাস্থলেই বজ্রপাতে মারা যায় তাদের দুটি ছাগল। আর স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে বদলগাছী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করায়।ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বদলগাছী থানার অফিসার ইনচার্জ মাহবুবুর রহমান।

জেলার ইতিহাস


দর্শনীয় স্থান