• ঢাকা
  • |
  • সোমবার ২১শে ফাল্গুন ১৪৩০ রাত ১১:৫৮:৪০ (04-Mar-2024)
  • - ৩৩° সে:
এশিয়ান রেডিও
  • ঢাকা
  • |
  • সোমবার ২১শে ফাল্গুন ১৪৩০ রাত ১১:৫৮:৪০ (04-Mar-2024)
  • - ৩৩° সে:

প্রিয় ঢাকা

সস্তা জনপ্রিয়তার ভিড়ে আলোচনায় নেই গুণগত লেখনী: লেখক-প্রকাশক

১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ দুপুর ০২:১৯:২৫

সস্তা জনপ্রিয়তার ভিড়ে আলোচনায় নেই গুণগত লেখনী: লেখক-প্রকাশক

মুজাহিদ: বই মানুষের জ্ঞানের পরিধিকে প্রসারিত করে। তবে এর জন্য প্রয়োজন মানসম্মত ও গুনগত বই। একটি যৌক্তিক, বাস্তবধর্মী ও গুণগত লেখনী আপনার আচার আচরণ ও চিন্তার জগৎকে যেমন সমৃদ্ধ করবে ঠিক তেমনি ত্রুটিযুক্ত অগুণগত লেখাও আমাদের অগ্রগতির পথে বাঁধা সৃষ্টি করবে।

কিছু বছর পূর্বেও যে বইমেলাতে হুমায়ুন আহমেদ, হুমায়ুন আজাদের মত সাহিত্যের জাদুকদের লেখনী আলোচনাতে মুখর থাকতো, সেখানে এখন ফেসবুক ইউটিউব বা বিভিন্ন মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ব্যক্তিদের লেখনী বইমেলা জুড়ে আলোচনার শীর্ষে। এই ভিড়ে যেন অনেকটা কোনঠাসা হয়ে পড়েছে গুণগত লেখনী।

অনেক লেখক প্রকাশকের মতে, অমানসম্মত বই যেমন একটি প্রকাশনার সুনাম নষ্ট করে ঠিক তেমনি এটি সাহিত্য ও সংস্কৃতির উপর বিরূপ প্রভাব ফেলে।

প্রবীণ কবি, গল্পকার ও কথাসাহিত্যিক শাওন আসগর বলেন, 'আমরা শুনেছি সম্প্রতি কোন এক বই নাকি স্টক আউট হয়েছে এবং এটাও শুনেছি বইটির ভেতর নাকি কিছুই নেই। আসলে সাহিত্য মানে শুধু পাঠককে আনন্দ দেয়া নয়। সাহিত্য তখনই ভাল হতে পারবে যখন এটি পাঠককে ভাবাবে, হৃদয়কে টার্চ করবে, দৃষ্টিভঙ্গি বদলে দেবে। পাঠককে চিন্তা করাবে তার দেশের কথা, চিন্তা করাবে কীভাবে অন্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়ানো যায় তখনই আসলে ভাল লেখনীর সৃষ্টি হবে।'

তিনি আরেও বলেন, 'সেলিব্রিটি থেকে লেখক হওয়া এবং সস্তা সেলিব্রিটি থেকে লেখক হওয়া দু'টা আলাদা বিষয়। আমাদের মমতাজ উদ্দিন আহমেদ বিটিভির প্রখ্যাত অভিনেতা। তিনি একজন প্রফেসরও ছিলেন এবং তার লেখা অনেক বই আছে। এর মানে সেলিব্রিটি থেকেও ভাল লেখকও হওয়া যায়। কিন্তু অযাচিত প্রচার কার্যক্রম করে সস্তা সেলিব্রিটি থেকে লেখক হওয়ার মাঝে অন্তনিহিত যে উদ্দেশ্য থাকে সেটাকে আমি গ্রহণ করতে পারি না।'

লেখনীর বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তিনি বলেন, 'একজন ভাল লেখক হতে হলে লেখার গুণগত মান ভাল হতে হবে এবং সাহিত্যের উপর ভাল ধারণা থাকতে হবে। এছাড়া আধুনিক কাল বা সাম্প্রতিক সময়ের যে পৃথিবী বা এর সাথে সম্পর্কিত বিভিন্ন বিষয় যেমন, আমাদের সমাজ, আমাদের রাষ্ট্র এবং বিভিন্ন ক্রাইসিস যেমন, আমলাতন্ত্র, মানবতাবিরোধী, অন্যদের দখল, অন্যকে আক্রমণ ইত্যাদি সব বিষয়কে ফোকাস করতে হবে। তাহলে ভাল একটা সাহিত্য সৃষ্টি হবে বলে আমি মনে করি।'

সস্তা সেলিব্রিটি ব্যক্তিদের লেখনী সাহিত্যে কতটুকু প্রভাব ফেলতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, 'এটি পাঠকের উপর নির্ভর করবে তারা কতটুকু গ্রহণ করছে। কিন্তু এই বইগুলতে তারা কতটুকু সাহিত্যের মান বজায় রাখছেন এটা দেখার বিষয়। যদি কেউ সত্যি সাহিত্যে, শব্দ চয়নে, ভাষা রীতিতে, বাক্যগঠনে ভাল ধারণা নিয়ে লেখেন তাহলে একটি সুন্দর গল্প, প্রবন্ধ বা উপন্যাস তৈরী করতে পারবে। তবে সাম্প্রতি যে সব বই নিয়ে এত আলোচনা সমালোচনা হচ্ছে আমি ব্যক্তিগতভাবে তাদের বই হাতে ধরিনি এবং পড়িও নি।

তিনি আরও বলেন, 'পাঠকেরও কিছু শ্রেণি-বিভাগ আছে, কিছু পাঠক আছেন তারা প্রকৃতই ভাল লেখকের বই পড়েন। আবার আরেক শ্রেণি আছেন টিনএজের তারা থ্রিল, সমসাময়িক, প্রেম বা সামাজিক সমস্যা ভিত্তিক বই পছন্দ করেন। যার ফলে আমাদের সমাজে কিশোরদের মাঝে ইতিবাচক একটা মোড় নিচ্ছে। হুমায়ুন আহমেদ, হুমায়ুন আজাদ বা আহমেদ ছফা এরাও তাদের অসাধারণ লেখনীর মাধ্যমে আমাদের মাঝে এখনো আছেন।'

ঔপন্যাসিক ও সাহিত্যিক পলাশ আহমেদ বলেন, 'সাহিত্য আসলে এমন একটা বিষয় যেখানে নাম ফ্রেম দিয়ে টিকে থাকার কোন সুযোগ নাই। এখানে লেখনীর মাধ্যমে, কলমের শক্তির মাধ্যমে টিকে থাকতে হয়। লেখা যদি দুর্বল হয় তাহলে পাঠক এক দু’বার বই কিনবে কিন্তু পরে আর কিনবে না বা ফিরেও তাকাবে না।'

তিনি আরও বলেন, 'এখানে আসলে যোগ্যতা দিয়ে টিকে থাকতে হবে, সেলিব্রিটি বলে কোন বিষয় নেই। এ বছর  অনেক নতুন নতুন বই বের হয়েছে এর মাঝে অনেকে থাকবে আবার অনেকে থাকবে না। এরা আসলে হঠাৎ করে উঠে আবার হটাত করে নেমে যায়।'

গ্রন্থিক প্রকাশনীর সিইও তানিয়া বলেন, 'প্রকাশনা ব্যবসায় আসলে দু'টি দিক আছে। একটি হল, এ বছর আমার কি কি ভাল বই বের হচ্ছে। এটি প্রকাশনার জন্য সুনাম। আরেকটি দিক হল, কি কি সেলএবল বই আসছে। এটি ব্যবসায় লাভবান হওয়ার একটা দিক। এই দিকটির কথা ভেবে অনেকে সস্তা জনপ্রিয় লেখকদের বই বের করছে। এর ফলে হয়তো তারা সাময়িক লাভবান হচ্ছে।'

তিনি আরও বলেন, 'আমি প্রকাশনার জায়গা থেকে বলবো, এমন সব সস্তা জনপ্রিয় লেখকদের মানসম্মতহীন বই প্রকাশের ফলে প্রকাশনার সুনাম নষ্ট হয়। এবং যারা আসলে ভাবছে ভাল বই আনবে বা ভাল বই প্রকাশের মধ্যদিয়ে আইডল হবে তাদের জন্য বিষয়টি খুবই কোনঠাসা হয়ে যায়। যেমন, অনেক পাঠক আমাদের এসে প্রশ্ন করে, কি মানের বই বের হয়েছে। এমন ধরণের প্রশ্নগুলা পাঠকরা তখনই করতে পারে যখন সস্তা জনপ্রিয় লোকরা বই বের করে এবং তাদের বইতে শিক্ষণীয় তেমন কোন বিষয়ই থাকে না। এমন বিষয়গুলা আমাদেরকে খারাপ একটা পরিস্থিতির মধ্যে ফেলে দেয়।'

মেলাতে ঘুরতে আসা তরুণ পাঠক ও ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থী রেদওয়ান রাহাত বলেন, 'বর্তমানে ভাইরাল বা সস্তা জনপ্রিয়তা পাওয়া ব্যক্তিদের কারণে যে গুণগত মান সম্পন্ন লেখকদের বই একে বারে কোনঠাসা হয়ে যাচ্ছে বিষটা আমার এমন মনে হয় না। সাময়িক ভাইরালের কারণে মানুষ তাদের নিয়ে একটু বেশি মাতামাতি করছে তবে কিছু সময় পর তাদের নিয়ে এ মাতামাতিও কমে যাবে। এটাতে গুণগত মানের লেখকদের বইয়ের আলোচনা সাময়িক সময়ের জন্য একটু কম হলেও তাতে তেমন কোন প্রভাব পরবে বলে আমি মনে করি না।'

Recent comments

Latest Comments section by users

No comment available

সর্বশেষ সংবাদ





নওগাঁয় পাট চাষী সমাবেশ অনুষ্ঠিত
৪ মার্চ ২০২৪ রাত ০৯:২৪:০২