• ঢাকা
  • |
  • বৃহঃস্পতিবার ৯ই ফাল্গুন ১৪৩০ রাত ১২:৫১:০৮ (22-Feb-2024)
  • - ৩৩° সে:
এশিয়ান রেডিও
  • ঢাকা
  • |
  • বৃহঃস্পতিবার ৯ই ফাল্গুন ১৪৩০ রাত ১২:৫১:০৮ (22-Feb-2024)
  • - ৩৩° সে:

জেলার খবর

মিয়ানমার থেকে একের পর এক গোলা এসে পড়ছে বাংলাদেশে, আতঙ্কে স্থানীয়রা

১২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ দুপুর ০১:৪৯:৫৬

মিয়ানমার থেকে একের পর এক গোলা এসে পড়ছে বাংলাদেশে, আতঙ্কে স্থানীয়রা

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ সীমান্তে মিয়ানমারের যুদ্ধের আঁচ। মিয়ানমার থেকে ছোড়া গোলা যত্রতত্র ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ছে বাংলাদেশ সীমান্তে। অনেকে না বুঝে এসব কুড়িয়ে নিয়ে যাচ্ছে বাড়িতে, যা নিয়ে রয়েছে ভয় আতঙ্ক। কারণ কিছু গোলা এখনো অবিস্ফোরিত। তাই সীমান্তে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বিজিবি।

স্থানীরা জানান, তমব্রু পশ্চিম কূলের কিষানি রাজিয়া বেগম অবিস্ফোরিত একটি রকেট লঞ্চার মরিচখেত থেকে কুড়িয়ে বাড়ি নিয়ে যান। তিনি ভেবেছিলেন মূল্যবান কোনো বস্তু। কিন্তু পরে যখন জানতে পারেন এটা বিস্ফোরক, তখন সেটাকে ফেলে আসেন। শুধু রাজিয়ার পাওয়া একটা নয়, স্থানীয়রা আরো ৩টি রকেট লঞ্চার কুড়িয়েছিলেন।

স্থানীয় এক কৃষক দাবি করেন, মাঠে গেলেই বিভিন্ন বড়-ছোট গোলা খুঁজে পান তারা।

সূত্র বলছে, তমব্রু থেকে টেকনাফের হ্নীলা পর্যন্ত বিস্তীর্ণ সীমান্ত এলাকার ওপারে মিয়ানমারের জান্তার সঙ্গে বিদ্রোহী আরাকান আর্মির মধ্যে সংঘর্ষ অব্যাহত আছে। তমব্রু-ঘুমধুম অংশে কিছুটা কমলেও টেকনাফের ওপারের অংশে এখনো লড়াই চলছে। এ যুদ্ধকালে তারা ব্যবহার করে রকেট লঞ্চার, মর্টার শেলসহ ভারী অস্ত্র। তাদের সংঘর্ষকালে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে বিভিন্ন গুলি ছুটে আসে। গুলির সন্ধান মিলছে বাংলাদেশ সীমান্তের নানা স্থানে। বিশেষ করে কৃষিক্ষেত, মৎস্য ঘের ও তমব্রু খালের তীরে বা বাড়ির আঙিনায়।

উদ্ধার করা ৩টি রকেট লঞ্চারের গুলি গত রোববার ও শুক্রবার বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বোমা বিশেষজ্ঞ দল ইতোমধ্যে নিষ্ক্রিয় করেন।

এছাড়া নানা মাধ্যমে খবর আসে, আরো অনেক গুলি কৃষক বা গৃহিণীরা পেয়েছেন। তাদের খেতের বা বাড়ি আঙিনায়। এ খবরে সীমান্তরক্ষীদের টনক নড়ে।

এদিকে, সীমান্তে না যেতে ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদের বাসিন্দাদের নির্দেশ দেন ৩৪ বিজিবি। এ কারণে ১১ ফেব্রুয়ারি রোববার বিকেলে তমব্রু, ভাজাবুনিয়া হেডম্যান পাড়া, তমব্রু পশ্চিম কূল, তেঁতুলতলা, জলপাইতলী, বেতবুনিয়া, মণ্ডলপাড়া, পশ্চিম পাড়া ও নয়া পাড়ায় মাইকিং করা হয়। এ তথ্য নিশ্চিত করেন ঘুমধুম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এ কে এম জাহাঙ্গীর আজিজ।

তিনি বলেন, জনস্বার্থে ৩৪ বিজিবি মাইকিং করতে বলেন। যেহেতু সীমান্ত পরিস্থিতি ভালো না। তাই মাইকিং করা হয়েছে।

মাইকিংয়ে বলা হয়, বর্তমান পরিস্থিতিতে সীমান্তে তাজা গোলা পাওয়া যাচ্ছে, যা বিপজ্জনক। এ কারণে বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে যাওয়া নিষেধাজ্ঞা জারি করা হচ্ছে। বিশেষ করে নোম্যান্সল্যান্ডে মোটেও যাওয়া যাবে না। আগামী কয়েকদিন পর্যন্ত এ নিষেধাজ্ঞা চলমান থাকবে।

Recent comments

Latest Comments section by users

No comment available

সর্বশেষ সংবাদ

অনন্তকালের প্রতিধ্বনি: একুশে ফেব্রুয়ারি
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ রাত ১০:০৫:১২


হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ রাত ০৮:৫৪:০৬


হিলিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত
২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ রাত ০৮:৫১:৩৫