• ঢাকা
  • |
  • সোমবার ৯ই আষাঢ় ১৪৩১ রাত ০২:৩৪:২৫ (24-Jun-2024)
  • - ৩৩° সে:
এশিয়ান রেডিও
  • ঢাকা
  • |
  • সোমবার ৯ই আষাঢ় ১৪৩১ রাত ০২:৩৪:২৫ (24-Jun-2024)
  • - ৩৩° সে:

জেলার খবর

উল্লাপাড়ায় রোজায় বেড়েছে সলপের ঘোলের চাহিদা

৮ এপ্রিল ২০২৩ দুপুর ১২:১৭:০৬

উল্লাপাড়ায় রোজায় বেড়েছে সলপের ঘোলের চাহিদা

আল-আমিন,উল্লাপাড়া(সিরাজগঞ্জ)প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার ঐতিহ্যবাহী সলপের ঘোলের চাহিদা এমনিতেই বেশি। দূর দূরান্ত থেকে মানুষ উল্লাপাড়ায় আসেন সলপের ঘোলের স্বাদ নিতে। রমজানে সারাদিন রোজা রেখে নিরাপদ পানীয় হিসেবে সরবতের পরিবর্তে ঘোল আরও বেশি উপাদেয়। এই কারণে রমজানে ঘোলের চাহিদা বেড়ে গেছে বহুগুণ।

প্রতিদিন ভোরে গ্রামের খামারিদের কাছ থেকে সংগৃহীত গরুর দুধ আড়াই থেকে ৩ ঘণ্টা জ্বাল দেওয়া হয়। সেই দুধ নির্দিষ্ট সময় জ্বাল দেওয়ার পর পাত্রে করে সারারাত রেখে দেওয়া হয়। সকালে জমে থাকা সেই দুধের সঙ্গে চিনি ও অন্য উপকরণ মিশিয়ে তৈরি করা হয় এই সুস্বাদু পানীয়। ঘোলের ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে প্রতিবছর বৈশাখ মাসের প্রথম শুক্রবার সলপে ঘোল উৎসবের আয়োজন করা হয়।

প্রতিদিন ১টি দোকানে ৪০মণ বিক্রি করে এবং এই চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় ব্যাস্ততা বেড়েছে ঘোল কারখানার কর্মীদের। তাদেরে একটু দম ফেলার ফুরসুত নেই। ঘোলের দোকানে দোকানে চলছে দেদারসে বেচাকেনা।

ঘোল কিনতে আসা আল মাহমুদ বলেন, সারাবছর এমনিতেই সলপের বিখ্যাত ঘোল খাওয়ার জন্য আসি। ইফতারের সময় ঘোল খাওয়ার পর সারাদিনের রোজার ক্লান্তি দুর হয়ে যায়। রোজার কারণে ইফতারের সময় একটু প্রশান্তি পেতে ও পরিবারের জন্য প্রতিদিন ঘোল কিনতে আসি। 

টাঙ্গাইল থেকে পাইকারি ঘোল কিনতে আসা মাহফুজ বলেন , সলপের ঘোল সুস্বাদু হওয়ার কারণে এর চাহিদা অনেক। আর রোজার ভিতরে চাহিদা কয়েকগুন বেড়ে যায় । আমি প্রতিসপ্তাহে ৩ মণ করে পাইকারি ঘোল কিনে টাঙ্গাইলে নিয়ে বিক্রয় করি। বর্তমানে রোজার কারণে এর চাহিদা আরও বেশি ।

সলপের ঘোল ব্যবসায়ীরা বলছেন, রমজানে সিরাজগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলা থেকে ক্রেতারা আসছেন সলপের ঘোল ও মাঠা কিনতে। রমজানে দুধ ও ঘোলের অন্যান্য কাচাঁমালের মূল্য বেশি হওয়ায় ঘোলের দাম কিছুটা বেড়েছে। তবে অন্যান্য সময়ের তুলনায় রমজানে ক্রেতাদের ঘোলের চাহিদা থাকে অনেকটাই বেশি। বর্তমানে দুধের দাম বেড়ে যাওয়ায় প্রতি কেজি ঘোল বিক্রি করতে হচ্ছে ৭০-৮০ টাকা লিটার এবং মাঠা বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা লিটার। রমজান মাসে ইফতারিতে সলপের ঘোলের চাহিদা বেশি থাকে।

এ বিষয়ে উল্লাপাড়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসার ডা. স্বপন চন্দ্র দেবনাথ বলেন ,আমরা প্রাণীসম্পদ অফিস থেকে ঘোল ব্যবসায়িদের প্রযুক্তিগত সহায়তা প্রদান করছি। সেই সাথে সরকারি ভাবে অনুদানের জন্য ব্যবসায়ীদের নামের তালিকা প্রাণীসম্পদ অধিদপ্তরে প্রেরণ করেছি।
 

Recent comments

Latest Comments section by users

No comment available

সর্বশেষ সংবাদ