• ঢাকা
  • |
  • সোমবার ৯ই আষাঢ় ১৪৩১ ভোর ০৪:১৪:০০ (24-Jun-2024)
  • - ৩৩° সে:
এশিয়ান রেডিও
  • ঢাকা
  • |
  • সোমবার ৯ই আষাঢ় ১৪৩১ ভোর ০৪:১৪:০০ (24-Jun-2024)
  • - ৩৩° সে:

মানিকগঞ্জে স্কুল কমিটির নির্বাচন নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ১৫

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি: মানিকগঞ্জের হরিরামপুর উপজেলার বলড়া মুন্নু আদর্শ বিদ্যা নিকেতনের পরিচালনা পর্ষদের নির্বাচন পরবর্তী  ফলাফল ও মিছিল করাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন ।১৩ জুন বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। মারাত্মকভাবে আহত আনোয়ার হোসেন আনু ও মো. রাজ্জাক হোসেনকে  মানিকগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গতকাল স্কুলটির পরিচালনা পর্ষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বিকেলে ফলাফল ঘোষণার পর হরিরামপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দেওয়ান সাইদুর রহমান ও জেলা বিএনপির সভাপতি আফরোজা খান রিতা ব্যক্তিগত সহকারী (পিএস) রেজাউল করিমের প্রার্থীরা নির্বাচনে পরাজিত হন।জয়ী প্রার্থী ও সমর্থকেরা স্কুল মাঠে বিজয় মিছিল করার জন্য জড়ো হন। এ সময় সাইদুর রহমান ও রেজাউল করিমের লোকজন তাদের বিজয় মিছিল করতে বাঁধা দেয়। এ সময় উভয় পক্ষের বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে পরাজিত প্রার্থীর লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে জয়ী প্রার্থী ও সমর্থকদের উপর হামলা চালায়।এতে ক্ষুব্ধ হয়ে পরাজিত প্রার্থীদের লোকজন দেশীয় অস্ত্র দিয়ে জয়ী প্রার্থী ও তাঁদের সমর্থকদের উপর হামলা চালায়। এতে জয়ী প্রার্থী আনোয়ার হোসেন (আনু) সহ অন্তত ১৫ জন আহত হন। আহতদের কয়েকজন স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছেন।আহত জয়ী প্রার্থী আনোয়ার হোসেন (আনু) বলেন, আজকের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে আমি দ্বিতীয় স্থান অধিকার করি। আমি ন্যায় বিচার আশা করি। নির্বাচনের ক্ষোভ থেকে আজকের এই ঘটনা ঘটিয়েছে।আহত মো. রাজ্জাক হোসেন বলেন, বলড়া মুন্নু আদর্শ বিদ্যা নিকেতনে আমার ভাই আনুর জয়লাভে রিতা আপার পিএস রেজা ভাই তার বাহিনী দিয়া, সাইদুর দেওয়ানের বাহিনী দিয়া ও হালিম বিশ্বাসের বাহিনী দিয়া আমাদের খুব মাইরধর করিয়েছে। চাপাটি দিয়া ও কুবাইছে, চাইনিজ কুড়াল দিয়া কুবাইয়া খুব অত্যাচার করছে।রেজাউল করিমের সাথে মোবাইলে  যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমার তো আর খায়া কাম নাই, কার সাথে মারামারি হইছে, তাই তো জানি না আমি।অভিযোগের বিষয়ে হরিরামপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দেওয়ান সাইদুর রহমানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।হরিরামপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহ্ নুর এ আলম বলেন, এ ব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নিবো।এ বিষয়ে মানিকগঞ্জ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ হাবিল হোসেন বলেন, এ ব্যাপারে থানায় এখনো কেউ অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।