• ঢাকা
  • |
  • শনিবার ২৮শে আষাঢ় ১৪৩১ রাত ০১:৪২:১৮ (13-Jul-2024)
  • - ৩৩° সে:
এশিয়ান রেডিও
  • ঢাকা
  • |
  • শনিবার ২৮শে আষাঢ় ১৪৩১ রাত ০১:৪২:১৮ (13-Jul-2024)
  • - ৩৩° সে:

অপরাধ

মেঘনা পেট্রোলিয়ামের তিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

৮ জুলাই ২০২৪ দুপুর ০১:৫০:২১

মেঘনা পেট্রোলিয়ামের তিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

মাজেদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম: পছন্দের প্রতিষ্ঠানকে কাজ পাইয়ে দিতে চট্টগ্রামের মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের তিন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে টেন্ডার জালিয়াতির অভিযোগ উঠেছে। প্রতিষ্ঠানটি ২০২৩-২৪ অর্থবছরে একুশটি কাজের জন্য দুটি পদ্ধতিতে দরপত্র আহবান করে। এরমধ্যে বিশটি ‘উন্মুক্ত দরপত্র’ পদ্ধতির (ওটিএম) মাধ্যমে এবং একটি টেন্ডার ‘ওএসটিইটিএম’ পদ্ধতিতে করা হয়।

ওটিএম দরপত্রে নিয়ম অনুযায়ি যেসব ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানগুলো অংশ গ্রহণ করবে, তারা শিডিউলের মোট মূল্যের ১০ ভাগ অর্থ কম বা বেশি দেখিয়ে দরপত্র দাখিল করে থাকেন । এক্ষেত্রে মেঘনা পেট্রোলিয়ামের কিছু কর্মকর্তার যোগসাজশে পছন্দের প্রতিষ্ঠানকে কাজ পাইয়ে দিতে গোপন করা হয় শিডিউলের প্রকৃত মোট মূল্যের অংকের পরিমাণ। এতে মোট অংকের ১০ ভাগ অর্থ কম বা বেশি দেখিয়ে দরপত্র দাখিল করেও কাজ পাচ্ছে না অনেক প্রতিষ্ঠান। তাদের কৌশলের ফাঁদে পড়ে টাকা খরচ করে শিডিউল কিনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন অনেক ঠিকাদার।

অভিযোগ রয়েছে, সরকারি স্বায়ত্বশাসিত মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার (অপারেশন্স) মো. মফিজুর রহমান, জেনারেল ম্যানেজার (এইচআর) ইনাম ইলাহী চৌধুরী, ও সহকারী জেনারেল ম্যানেজার (পার্চেজ) মোহাম্মদ শরিফুল ইসলামের ‘কৌশলের মারপ্যাচে’ পড়ে নির্দিষ্ট কয়েকটি প্রতিষ্ঠান বারবার কাজ পাচ্ছে। পছন্দের প্রতিষ্ঠানকে দরপত্রের কাজটি পাইয়ে দিলে ওই কর্মকর্তারা আর্থিকভাবেও লাভবান হচ্ছেন।

মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের গত তিনবছরের ৯১টি টেন্ডারের তথ্য বলছে- ‘ওএসটিইটিএম’ পদ্ধতিতে ১৯ টি দরপত্র আহবান করা হয়েছে। আর পছন্দের প্রতিষ্ঠানকে অর্থের বিনিময়ে কাজ পাইয়ে দিতে বাকী টেন্ডারগুলো হয় ওটিএম পদ্ধতিতে। এর মাধ্যমে এম.এস ইসলাম এন্টারপ্রাইজ একাই পেয়েছে ৯টি কাজ। এমএস আরিয়ানা ট্রেডিং,সামুদা কনটেইনার্স লিমিটেড ৫টি করে কাজ পেয়েছে। এছাড়া টি.এস এন্টারপ্রাইজ, সু-কন্যা এন্টারপ্রাইজসহ বেশ কয়েকটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ওই অসাধু কর্মকর্তাদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে। যেকারণে ঘুরে ফিরে একই প্রতিষ্ঠানগুলো বারবার কাজ হাতিয়ে নিচ্ছে। ফলে হাজার হাজার টাকা খরচ করে তাদের কৌশলের কারণে দরপত্রে অংশ গ্রহণ করার আগ্রহ হারিয়ে ফেলছে অনেক ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।

ঠিকাদারদের অভিযোগ—মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের কর্মকর্তারা  উন্মুক্ত দরপত্র পদ্বতির (ওটিএম) মাধ্যমে দরপত্র আহ্বান করলেও সেই দরপত্রের কাজ তাদের নিদিষ্ট ঠিকাদার ছাড়া অন্য কেউ পায় না।

এরই মধ্যে একটি নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে টেন্ডারের কাজ পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগ এনে মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. টিপু সুলতানের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ফারদিন বিল্ডার্স নামে একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান।

ওই চিঠি বলা হয়, মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের ঝালকাঠী ডিপোর বিভিন্ন কাজের একটি দরপত্রে অংশগ্রহণ করে ফারদিন বিল্ডার্স। দরপত্রের মোট মূল্য দেখানো হয় ৫২ লাখ ৮০ হাজার টাকা। ওটিএমের নিয়মে মোট মূল্য অনুযায়ী দরপত্র দাখিল করা হয়। কিন্তু দরপত্র খোলার পর দেখা যায় অফিশিয়ালি দরপত্রের মোট মূল্য ছিল ৫২ লাখ ৭৭ হাজার ৪৯ টাকা। অসাধু কর্মকর্তাদের যোগসাজশে দরপত্রের এই প্রকৃত হিসাব আগে থেকে জেনে যাওয়ায় সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে কাজটি পেয়েছে টি.এস এন্টারপ্রাইজ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের জিএম (এইচআর) মো. ইনাম ইলাহী চৌধুরী সরাসরি বক্তব্য রাজি না হলেও অভিযোগ অস্বীকার করেন।

আর প্রতিষ্ঠানটির জিএম (অপারেশন্স) মো. মফিজুর রহমান হাতজোড় করে ক্যামেরার সামনে কথা বলতে অস্বীকৃতি জানান।

এদিকে কার্যালয়ে উপস্থিত না থাকায় বারবার চেষ্টা করেও মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেডের এমডি মো. টিপু সুলতানের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

Recent comments

Latest Comments section by users

No comment available

সর্বশেষ সংবাদ









শাহবাগে কোটা আন্দোলনকারীদের বিক্ষোভ
১২ জুলাই ২০২৪ বিকাল ০৫:৫৩:১৬