• ঢাকা
  • |
  • সোমবার ১০ই আষাঢ় ১৪৩১ বিকাল ০৪:৩১:০২ (24-Jun-2024)
  • - ৩৩° সে:
এশিয়ান রেডিও
  • ঢাকা
  • |
  • সোমবার ১০ই আষাঢ় ১৪৩১ বিকাল ০৪:৩১:০২ (24-Jun-2024)
  • - ৩৩° সে:

পৌরসভা

রূপগঞ্জে প্রতীক বরাদ্দের সময় মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে হাতাহাতি

১০ জুন ২০২৪ সন্ধ্যা ০৭:৫৯:৩২

রূপগঞ্জে প্রতীক বরাদ্দের সময় মেয়র প্রার্থীদের মধ্যে হাতাহাতি

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি: নারায়ণগঞ্জ রূপগঞ্জের কাঞ্চন পৌরসভা নির্বাচন প্রতীক বরাদ্দের সময় রিটার্নিং কর্মকর্তার সামনে দুই মেয়র প্রার্থীর মধ্যে হাতাহাতি, ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার বেলা ১২ টার দিকে উপজেলা মিলনায়তনে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ওসির সামনে মেয়র প্রার্থী দুই পক্ষের মধ্যে এ হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

এসময় মেয়র প্রার্থী আবুল বাশার বাদশার লোকজন উত্তেজিত হয়ে উপজেলা মিলনায়তনের দরজা ভাংচুর করে। মেয়র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম ও তার লোকজনদের উপর হামলা চালায়। পরে রূপগঞ্জ থানার অতিরিক্ত পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে একঘন্টা পর পুনরায় পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়।

আগামী ২৬ জুন কাঞ্চন পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ উপলক্ষ্যে আজ প্রতীক বরাদ্দের দিন নির্ধারণ করা হয়। বেলা ১১ টার দিকে মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র রফিকুল ইসলাম তার প্রস্তাবকারী ও সমর্থনকারী নিয়ে সামনের আসনে বসে। এর কিছুক্ষণ পরে আরেক মেয়র প্রার্থী আবুল বাশার বাদশা তার লোকজন নিয়ে শ্লোগান দিতে দিতে মিলনায়তন ভবনে প্রবেশ করে। এসময় বাদশা রফিককে তুই তুকারি করে পেছনের চেয়ারে গিয়ে বসতে বলেন। এ নিয়ে উভয়পক্ষের লোকজনেরর মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে উত্তেজিত লোকজন মিলনায়নের ভেতরে একপক্ষ আরেক পক্ষকে লক্ষ্য করে চেয়ার ছোড়াছুড়ি করে করে। দরজা ভাংচুর করে। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ, আনসার এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ১ ঘন্টা পর দুপুর ১ টার দিকে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়।

এব্যাপারে মেয়র প্রার্থী রফিকুল ইসলাম বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে তিনি তার সমর্থনকারী ও প্রস্তাবকারীসহ সমর্থকদের নিয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তার সম্মুখে চেয়ারে বসেন। কিছুক্ষণ পর বাদশাসহ তার লোকজন শ্লোগান দিতে দিতে প্রবেশ করে আমার লোকজনের সাথে খারাপ ব্যবহার করে। এ ঘটনায় তিনি রিটার্নিং কর্মকর্তা ও প্রশাসনের সু-দৃষ্টি কামনা করেন।

অপর মেয়র প্রার্থী বাদশা বলেন, ভিতরে সামনের চেয়ারে মেয়র প্রার্থিরা বসবে। কিন্তু সেখানে অন্য লোক বসায় কিছু কথা কাটাকাটি হয়েছে। পরে স্বাভাবিক হয়ে গেছে।

এব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার ওসি দিপক চন্দ্র সাহা বলেন, প্রতীক বরাদ্দের সময় লোকজন কিছুটা উত্তেজিত হয়ে উঠেছিল। আমরা পরে তাদের শান্ত করি। তবে নির্বাচনে এমন ঘটনা ঘটলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার ইস্তাফিজুল ইসলাম বলেন, আমার সামনে দুই পক্ষের সমর্থকদের লোকজন উত্তেজিত হয়ে উঠেছিল। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি শান্ত করে। তবে ঘটনাটি ন্যাক্কারজনক। আমি উভয় পক্ষকে প্রথমবারের মত সাবধান করে দিয়েছি। পরবর্তীতে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।

Recent comments

Latest Comments section by users

No comment available
12

সর্বশেষ সংবাদ



ফকিরহাটে চা দোকানদারের মরদেহ উদ্ধার
২৪ জুন ২০২৪ বিকাল ০৪:১২:১৭









13

14